Saikat Mukherjee

Now I ask my name….which I found at first in my way… –A sweet smell of desire…… it has things to say.

Category: Poetry

কোলকাতা

সর্বোপরি তোমার কাছে, ধুলো ঘামের মিশ্রণের সাথে,
বুক চিঁড়ে বহিত ধারার ছোঁয়ায়
জন্ম মৃত্যুর ধারাবাহিকতার সঙ্গে,
আজও জানু দুটো তোমার সামনেই নোয়ায়।

সর্বোপরি তোমার জন্য অদ্ভুত নিবিড় টানে,
তোমার ঘোলাটে বিভার মাধুর্য প্রীতে
কদাচিৎ নীলাম্বরের দর্শনেও অবিকার থাকি,
তোমার ভারী বাতাসের শীতে।

সর্বোপরি মৎস্য বিমুখ হয়েও,
অভ্যস্ত হয়েছে বিহারের নিরামিষ ভোজে।
তবু তোমার দেখার জাদু স্পর্শে,
মাছের আঁশেও কেন জানি সুবাস খোঁজে ।

সর্বোপরি প্রাত্যহিক জীবনের শব্দ দূষণে,
ভ্রু কুঞ্চন আর সহস্র বাতির চোখ ধাঁধানোর শেষে,
অকৃত্রিম দুটো বাংলায় হাঁক যেন বলে ওঠে,
যেন মৃত্যুর মুখদর্শী হই তোমারই ঘর্মাক্ত বেশে।

এবং সর্বোপরি যখন ভেসে ওঠে- ছাই রাস্তার বুক চিঁড়ে
অসংখ্য লৌহ রেলের সমাহার;
তখন স্বর্গোদ্যানের দর্শনে আর বি.বা.দি বাগের কাননে বারংবার ধ্বনিত হয়
কোথায় আছে শহর, দ্বিতীয় এই প্রকার!

 

-সৈকত মুখার্জ্জী

Advertisements

স্বপ্ন

স্বপ্ন হইয়া আছো জড়াইয়া,
আজও বাস্তবের সাক্ষাতে।
ক্ষনিকের পথে আর সঙ্গদোষে,
আলোকিত কায় নিস্তব্ধ প্রভাতে।

শান্তি হইয়াছে নিবিড় যত,
দুর্ভেদ্য মনে তাহাই হাজারো অব্যক্ত।
মস্তিষ্কে বাধা ভাবনাসকল,
আজ প্রভাত ধারায় তমসা সিক্ত।

কেমনে থাকি না ভাবিয়া,
যাহারে লাগে এতো আপন,
বসতি গড়িয়াছে যে পারাবার তীরে,
কেমনে করি তাহারে সংবরন।

একদিন সর্বপরি, উহার উক্তিগুলি
ব্যয় করি, নিঃশেষিত হইবে।
মনের আঁধারে, বিস্মিত বারে বারে,
স্মৃতির আবেগ উহার সাথেই রহিবে।

উহার ভাবনায়, মোহিত ক্ষণকালে,
অকপট প্রেমের সরস সংযোজন।
বসুধা মাঝে, উহার কাছে নিরর্থক সাজে,
সুসজ্জিত কত বহুমূল্য আয়োজন।।

-সৈকত মুখার্জ্জী

Winter

When it is all dried up,
and you dare drink the water;
those vehement approaches apprise you,
that it is already very much winter.

In the heavenly blue without any white,
when the sun shines brighter;
it is the shadow prevails and the wind unveils
that it is already very much winter.

The garb  with backed up heat,
and it produces a layered conduction,
as unrest is created near creator’s abode
even he can’t stop the inner vibration.

As the hands act as traitors themselves,
and gradually stabilize the inert writer;
the gazing greens while turning red, says
that it is already very much winter.

The afire woods in the solemn breeze,
might just stop you from the act of shiver,
but the belligerent night says to our forlorn fight,
that is already very much winter.

-Saikat Mukherjee

 

রাত জাগা তারা

এ কেমন মৃগ নয়নার রূপের সমনে,সমাদৃত চিবুকের  সমাগমে,
নির্ধারিত যে ওরা রাত জাগা তারা।
কত বিশ্লেষণের মাঝে, কত অযাচিত কাজে
নিবেদিত কালে, ওরা বড়ই দিশাহারা।

বেড়ে চলার পথে, কত পরিপক্ক  আঘাতে,
ওদের কাঁধে নিয়ত কত প্রবর্তিত দায়,
কত চঞ্চল পৌরুষের আবেশে;
আবিষ্ট না হয়ে, করে চলেছে ওদেরই নিরুপায়।

এর নিখিল আয়োজক কুল, কেন জানি
ভিনভাষী জ্ঞানধর্মে বড়ই ব্যাকুল।
যত শিক্ষনীয় আছে, ও না পিছিয়ে পড়ে পাছে,
তাই  বাধ্যতামূলক করে, কত প্রতিদ্বন্দ্বীর মাঝে
ঐ ক্ষুদ্রকায় যতপরনাস্তি চেষ্টায় আকুল।

উন্নাসিক  সকল, ওরা বুঝবে কি তা বল,
যেখানে জীর্ণ ভাষার মর্ম ;
অভিব্যক্তির সন্ততা যেখানে ক্ষুণ্ণ
প্রতিপদে আর শৈশব খচিত অকর্ম।

তাই এহেন উচ্চাসনের দৌড়ে,
পিছিয়ে পড়লেও  সমাদরে অবসৃত হোক প্রণতি।
সহজাত বাসনা যত  নির্ভয় হোক তত,
তা বিকশিত হোক মনে, এটাই আমার মিনতি।

– সৈকত মুখার্জ্জী

ত্রিভুবনের ওপারে

নির্ভেজাল আকাশে, মৃদু শান্ত বাতাসে,
জগৎতনয়ার আবির্ভাবে, হয়েছে
প্রশান্ত পারাবার।
দিবাকরালোকে,অদৃশ্য তারাদের মাঝে,
বারিদহীন মুক্তাম্বরে দেখি তার
আলোর সমাহার।

গ্রহাণুকুলের অন্তরালে,কত যুগের
ধকল সয়ে ধ্রুব তার
মহিমা।
রুক্ষ,তার ধ্রুব শীতলতা,
প্রভঞ্জন বিনা মৃত বিগ্রহ দাঁড়িয়ে,সে
প্রথমা।

কত ঝড়ের সূত্রপাতে,আতঙ্কিত স্রষ্টা,
তার সৃষ্টির প্রতিপত্তিতে,
শোষিত অনর্গল।
তবু শত নিধন উপেক্ষা করে,
পরিক্রমণরত সে আজও
পরিমল।

ক্রমবর্দ্ধমান,ক্রমহ্রাসমান,
কৃষ্ণাম্বর অপেক্ষারত তার দ্যুতিচ্ছটা
শেষে।
মোহময়ী আর ধ্রুবতারা নয়,
মোহময় তার রৌপ্যলোক আজ
ধরিত্রী বেশে।

কৃতি ছিল তখনও, কৃতি আজও,
তাপহীন ধরা তো নশ্বর প্রতিভা,
সে যতই হোক শোষিত।
শশীর কলায় জলোচ্ছ্বাসে,নিয়মিত
আভাসে, আজ এই ধ্বংসাত্মক জগৎও
ভূষিত।।

Knack of The Night

In the birth of supernovas
constraints are getting diminished.
Though a peculiar sound is on the rise;
as the joint is getting finished.

As the roof lurks into the sky,
an illegal move is on;
in the spell of the miniatured goddess,
it is giving life to argon.

It starts preparing to sleep,
with open reserved chamber.
Though it is quite melting down and
not bothered about the slumber.

The owls cry, and it’s not rare
with crickets all around.
Serenity is too much here
and creating skeptical sound.

The hot surface commits nuisance
here and doesn’t leave the back.
The wiping night is very vehement
though; with such gathered knack.

-Saikat Mukherjee

 

মানসিক

নিয়ত পৃথিবীর সাথে ঘূর্ণায়মান
ওঁরা আজ বদলেছে কত মত।
নিয়মিত রূপের আসরে বিক্ষুব্ধ আমরা,
অগত্যা ছেড়ে দিয়েছি তাঁদের পথ।

পরিবর্তন করে, পরিবর্তিত হয়ে;
অস্থায়ী এ দেহের বশে আচ্ছন্ন,
মোহাবিষ্ট কত প্রাণ আনন্দমুখর
আজ; করে চলেছে কত জীবন বিপন্ন।

লিখিত যা,আর অনুসৃত যা;
কেন জীবন দাঁড়িয়ে তার পরিচারিকাসম হয়ে!
নিছক সঙ্গদোষের অজুহাত
যেন নির্বাপিত অনল; মৃদু প্রভঞ্জন সয়ে।

কতটা পৃথকভেবে থেমে গেলে
হঠাৎ উপহাসকারী এ অনুভূতিশীল প্রাণ।
শত দ্বন্দের মাঝেও, দৃঢ়তার আবিষ্কার
এ জীবন তো যেন কত মানুষের দান।

হয়তো বা নির্ধারিত সময়ের ছলে,
ছদ্ম পরিধির বাইরে যেতে চাওয়া ভুল।
বিহিতের খোঁজে নিরস্ত্র ভুজে;
বিজিত সৈনিকও, তাই আজ জিততে ব্যাকুল।

Liberal

Leave it when it’s done,
though it had been waiting for long .
Thought it was eternal and
and the wind was not wrong!!

It stopped itself;
from being disassembled, from thinking.
It was never meant to be though
and was not supposed to be writing.

It is like trying to
mollify and is striving to find the
deplorable effects.
Still it is holding its head high, even,
when the disgrace affects.

The curtains were already closed,
and it still finds it quite unnatural;
this old course can never be reel
and so it looks back to the referral.

The course was in real 
and so was the referral.
The dismay was so deep,
that it started to be liberal. 

 

Bewildered

With the essence of the inevitable,
in the arms of the mighty
when suffering becomes a habit;
it’s better to be a deity.

When the paper becomes dark
and you can’t write with your own hand;
you can wait for the sea
and try to write on the sand.

Leaving behind everything when you got nothing
may not be a good choice;
but being a dumb
how can you raise your voice!

When you think all were by fluke
and you lose trying.
suddenly the world mollifies you
and stop you from crying.

When you lose your steps
and even Cerrone can’t make you dance,
you realize that you were lost in the roof
and it’s the time to enhance.

জে.পি.বি.এস্

উহা কি ছিল সত্যই
যাহার কোনো চিহ্ন নাই আজ!
মোর জীবন দর্পণের সম্মুখে
কত ভীড় করিয়া দাঁড়ায় যত রূপকথার সাজ।

অদ্ভূত অশান্ত দিনগুলিতে
যত দুষ্প্রাপ্যের সন্ধান পাই।
কতক্ষণ অগ্রসর হইয়া,শান্ত পরিবেশে
কেন শান্তির ঠাঁই নাই?

যাহার উত্তর দিয়া আজ এক্ষণে
অশ্রুস্রোতে ভাসিবে হয়তো প্রস্তর কঠিন মন।
বোধকরি কত ছিলাম ধনী,
যদিও খুঁজিয়া পাইবে না ধন।

তাঁহার দুয়ার সম্মুখে মোর ভিক্ষার ঝুলি
আজও প্রশস্ত করিতে লজ্জা নাই মোর,
কত বাঁধা নস্যাৎ করিয়া
উন্মুক্ত করিয়া দিয়াছিল নিজ ক্রোড়।

রহিয়াছে দাঁড়ায়ে করিয়াছে সমৃদ্ধ
মোর জীবনকালীন আধার।
যাহাতে আজ সক্ষম হয়তো,
হইত না সম্ভব স্পর্শ ব্যতীত তাঁহার।

জীবনকালে এহেন মন্দিরে
আজ পূজা দিতে যাই যবে;
প্রার্থনা মোর শেষ সজ্জায়
তাঁহার পরশ লভে।।

-সৈকত মুখার্জ্জী